Server sync... Block time in database: 1615391772, server time: 1664405058, offset: 49013286

Steem bangladesh contest || science technology computing || science || 10th march 2022 eng.


হ্যালো বন্ধুরা আশা করি সকলে ভালো আছেন আমিও ভালো আছি আমি স্টিম বাংলাদেশ আয়োজিত সাইন্স টেকনোলজি এবং কমপিউটিং প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতেছি।


প্রতিযোগিতার বিষয়


বিজ্ঞান



microbiologist-1332292_640.jpg

Source

বিজ্ঞানের ছোঁয়ায় আমাদের দৈনন্দিন জীবন এখন অতীতের থেকে অনেক আনন্দময় এবং ঝামেলা মুক্ত বিজ্ঞানের আবিষ্কারের ফলে আমরা নিত্য নতুন ভাবে জীবনকে গুছিয়ে নিতে পারছি।

আমি আজকে চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞান এর যে অকল্পনীয় অবদান গুলো লক্ষ করি সেগুলো আপনাদের সামনে তুলে ধরব।

বিজ্ঞান হচ্ছে মনের পরিশ্রমের কারুকাজ ফ্রান্সিস বেকনের এই উক্তির সাথে আপনার দ্বিমত থাকতেই পারে কিন্তু এটি অস্বীকার করার উপায় নেই যে বর্তমানের আধুনিক মানব সভ্যতা বিজ্ঞানের আশীর্বাদ স্বরূপ বিজ্ঞান আমাদের জীবনের সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত আছে আর বিজ্ঞানের যে শাখায় ছাড়া মানুষ বর্তমানে তার অস্তিত্ব কল্পনা করতে পারে না সেটি হল চিকিৎসা বিজ্ঞান।

analysis-2030265_640.jpg

Source

প্রাচীনকালে রাজা-বাদশাদের গল্প নিশ্চয়ই শুনেছেন অঢেল সম্পত্তির পর সামান্য জরে তাদের প্রাণ হারাতে হতো বর্তমানে রাজা-বাদশারা যেমন শুধুমাত্র গল্পের বই তেমনি তেমনি অসুস্থ হওয়া মানে যে প্রাণনাশের ধারণা অনেকাংশে বদলে গেছে এটি সম্ভব হয়েছে চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের অবদান এর কল্যাণে।



প্রাচীনকালের চিকিৎসা ব্যবস্থা



essential-oils-3456303_640.webp

Source

প্রকৃতির সাথে মানুষের সম্পর্ক ভিশন নিবিড় আর প্রাচীনকালে মানুষ চিকিৎসার জন্য সম্পূর্ণভাবে প্রকৃতির উপর নির্ভরশীল ছিল প্রকৃতিতে অফুরন্ত প্রকারভেদ এর উপাদান রয়েছে কিন্তু এসব উপাদানকে সঠিকভাবে প্রক্রিয়াজাতকরণ তখনকার দিনে অসম্ভব ছিল কারণ তখন বিজ্ঞান ছিল না ফলে দেখা যেত ডায়রিয়া কলেরা মতর যেসব রোগ নিয়ে বর্তমানে মানুষের মনে কোনো ভ্রুক্ষেপ নেই। তখনকার দিনে এসব রোগে গ্রামের পর গ্রামের মানুষ প্রাণহারা তো কারো সব রোগের লক্ষণ দেখা দিলে তাকে এক ঘরে করে রাখা তো যদি লতাপাতায় কাজ না হতো তবে তাদের শেষ ভরসা ছিল পানি পড়া তাবিজ ঝাড়ফুঁক ফকির পীর ওঝা।



আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থার সূচনা



engineer-4904908_640.jpg

Source

সর্বপ্রথম ইঞ্জিন আবিষ্কার এর মাধ্যমে বিজ্ঞান পৃথিবী কে বুঝিয়ে দেয় যে সময়ে এসে গেছে পুরনো খোলস ছেড়ে বেরিয়ে আসার বিজ্ঞান ধীরে ধীরে সমৃদ্ধ করতে থাকে মানব সভ্যতাকে। চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের আশীর্বাদ থেকে বঞ্চিত হয়নি মানুষ নতুন নতুন ঔষধ আধুনিক যন্ত্রপাতি শরীরে নকল অঙ্গ প্রতিস্থাপন রেডিয়াম লেজার রস্মি অপটিক্যাল ফাইবারের মাধ্যমে ক্যানসারের মতো দুরারোগ্য রোগ এর চিকিৎসা পিত্তথলি মূত্রথলির পাথর নিরসন শাড়ি পড়া চোখের অপারেশন করা এসব সম্ভব হয়েছে শুধুমাত্র বিজ্ঞানের গবেষণার ফলে। বয়স বাড়লে অনেকের কানে শুনতে সমস্যা হয় চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের এমন কিছু যন্ত্রপাতির আবিষ্কার হয়েছে যা ব্যবহারের মাধ্যমে কেউ এমন সমস্যা থেকে মুক্তি লাভ করতে পারে এমনকি বর্তমানে কেউ জন্মদানের আগে তাঁর কোন শরীক সমস্যা আছে কিনা সেটি নির্ণয় করে তার চিকিৎসা শুরু করা যাচ্ছে এসব কিছু বিজ্ঞানের বহুবচনে গবেষণার ফলে সম্ভব হয়েছে।



চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের নব নব উদ্ভাবন



about-3887439_640.jpg

Source

বর্তমানে দৈনন্দিন জীবন হোক বা চিকিৎসা সব ক্ষেত্রেই আমরা পুরোপুরি বিজ্ঞানের উপর নির্ভরশীল তবে আজকের এই আধুনিক চিকিৎসা ব্যবস্থায় বিজ্ঞানের বহুদিনের গবেষণার ফলাফল চিকিৎসা বিজ্ঞানের বিভিন্ন প্রণালী ও যন্ত্রপাতি একসময় আবিষ্কৃত হয়েছে যেমন হাজার 903 সালে ইসিজি মেশিন এর গঠন প্রণালী ক্যান্সারের আবিষ্কার হয়েছে হাজার 928 সালে পেনিসিলিন আবিষ্কার হয়েছে হাজার 943 সালে কিডনি ডায়ালাইসিস মেশিন তৈরি হয়েছে হাজার 978 সালের বিজ্ঞানীরা টেস্ট প্রজনন পদ্ধতি আবিষ্কার করেন তাছাড়া এক্স-রে 8 আলট্রাসনোগ্রাফি করেন চিকিৎসাবিজ্ঞানীরা।



রোগ প্রতিরোধে বিজ্ঞানের ভূমিকা



scientist-1332343_640.jpg

Source

প্রাচীনকালের মানুষরা কিভাবে নিজেদের রোগ বালাই থেকে নিজেকে সুস্থ রাখবে সে গান তাদের ছিল না বলেই ঘরে ঘরে এত প্রানহানীর ঘটনা ঘটতো। কেন এত মৃত্যু কেনইবা এতো সহজে মানুষ রোগ আক্রান্ত হয়ে পড়ছে এ প্রশ্নের উত্তর জানার কৌতুহল থেকে ধীরে ধীরে মানব দেহ নিয়ে বিজ্ঞানের গবেষণা বাড়তে থাকে। গবেষণার ফলে আজ আমরা কিভাবে নিজেদের বিভিন্ন জীবাণু থেকে মুক্ত রাখবো সে সম্পর্কে জেনে গেছি ডায়রিয়া কলেরার মত রোগ একসময়ে বহু মানুষের প্রাণ কেড়ে নিয়েছে। বিজ্ঞান আমাদের বোঝাল মলমূত্র ত্যাগের পর হাত ধোয়া আমাদের এই ধরনের রোগ থেকে সুরক্ষিত রাখে।যক্ষা ধনুষ্টংকার চিকেন পক্স এর মতো রোগ থেকে যেন আমরা সুরক্ষিত থাকি তাই বিজ্ঞান গবেষণার মাধ্যমে টিকা আবিষ্কার করেছে, সুতরাং রোগ প্রতিরোধের বিজ্ঞানের ভূমিকা অনস্বীকার্য।



জটিল রোগের চিকিৎসায় বিজ্ঞান



vaccine-3741298_640.jpg

Source

কুড়ি দম্পতি বহু বছর আগে রেডিয়াম ক্যান্সারের মতো জটিল রোগ আবিষ্কার করেছিলেন রেডিয়াম ক্যান্সারকে তখন বলা হত নো আনসার অর্থাৎ কেউ ক্যান্সার আক্রান্ত হলে ধরে না হতো যে তার মৃত্যু খুব কাছাকাছি তবে বিজ্ঞানের কল্যাণে বর্তমানে ক্যান্সারের মতো জটিল রোগের চিকিৎসা সম্ভব হয়েছে।এক সময় কি মানুষ ভেবেছিল যে একজন অঙ্গহীন মানুষের শরীরে সকল অঙ্গ প্রতিস্থাপন করা যাবে চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞান এই অসম্ভবকে সম্ভব করে দেখিয়েছে।



রোগ নিরাময়ে বিজ্ঞানের ভূমিকা



augmented-reality-1957411_640.jpg

Source

একসময় মানুষ শুধু একটু এতোটুকু বুঝতে ও তাদের শরীরে রোগ বাসা বেধেছে কিছুদিন পর তাদের সব কিছুর মায়া ছেড়ে পৃথিবী থেকে বিদায় নিতে হবে ধীরে ধীরে রোগ নির্ণয় পদ্ধতি আবিষ্কার করল তারপর কিভাবে বিভিন্ন রোগ থেকে নিজেকে সুরক্ষিত রাখা যাবে সে সম্পর্কে মাও সভ্যতাকে জানালো তারপর প্রকৃতিতে বিদ্যমান রয়েছে শয়তানগুলো ঔষধ হিসেবে ব্যবহার পদ্ধতি ছিল চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের প্রথম সাফল্য তারপর ধীরে ধীরে প্রতিটি রোগের জন্য আলাদা আলাদা ওষুধ আবিষ্কার করেছে বিজ্ঞান মানুষের কৃত্রিম হৃদপিণ্ড সবচেয়ে বড় সাফল্য।



চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞান এর সাফল্য



কোন দুর্ঘটনার ফলে মানুষের মুখ অন্য কোন অঙ্গ পুড়ে গেলে সে মানুষগুলো জানে তাদের জীবনটা ঠিক কতটা দুর্বিষহ হয়ে ওঠে তবে বর্তমানে কসমেটিক সার্জারির মাধ্যমে বিকৃত চেহারাকে অনেকটাই আগের রূপ ফিরে আনা সম্ভব আর এটি সম্ভব হয়েছে কেবলমাত্র চিকিৎসা বিজ্ঞানের উন্নতির কারণে বর্তমানে চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞানের বদৌলতে ঠোঁটকাটা নাককাটা ভোঁতা নাক উঁচু আঁকা বাঁকা নাক সোজা করা সম্ভব হয়েছে সিজারিয়ান পদ্ধতি আবিষ্কারের ফলে অনেক প্রসূতি মৃত্যুর হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে।



চিকিৎসা ক্ষেত্রে বিজ্ঞান এর বর্তমান চ্যালেঞ্জ



typewriter-5521552_640.webp

Source

চীনের উহান শহর থেকে মহামারী করোনাভাইরাস এর সূত্রপাত ঘটেছিল সেই ভাইরাসের তাণ্ডবে এখন পুরো বিশ্ব নাজেহাল বিজ্ঞানীরা এটাও বলতে পারছে না এ ভাইরাসে যাত্রা কবে শেষ হবে অনেক বিজ্ঞানীরা এটা বলছে যে আমাদেরকে করোনাভাইরাস সাথে নিয়ে চলতে হবে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের চিকিৎসা বিজ্ঞানীরা করনা ভাইরাসের টিকা আবিষ্কার করে ফেলেছেন আমাদের দেশে করনা টিকা প্রদান কার্যক্রম চালু রয়েছে বর্তমান সময়ে চিকিৎসাবিজ্ঞানীদের সবথেকে বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে করোনাভাইরাস কি পুরোপুরি নির্মূল করার জন্য কি ভ্যাকসিন আবিষ্কার করা।

বন্ধুরা এই ছিল আমার চিকিৎসা বিজ্ঞান নিয়ে আমার বিস্তারিত আলোচনার বিষয় আশাকরি আপনাদের ভাল লেগেছে।

আমি @avibauza @maulidar এই দু'জনকে এই কনটেস্টটিতে অংশগ্রহণ করার জন্য বিশেষভাবে আমন্ত্রণ জানাচ্ছি।



ধন্যবাদ সবাইকে


Comments 3